প্রিন্ট করার জন্য    ছোটো করে দেখুন বড় করে দেখুন  শেষ  পূর্ববর্তী 
70  পরবর্তী শেষ



প্রথমে একটা স্থির ছবি-গুপী ধানখেতের আল ধরে তানপুরা কাঁধে হেঁটে যাচ্ছে, মুখে হাসি। পর্দায় লেখা পড়ে : 'কানু কাইনের ছেলে গোপীনাথের বড় গানের শখ।' ছবি সচল হয়-গুপী হেঁটে চলে। দূরে মাঠে একজন বৃদ্ধ চাষাকে চাষ করতে দেখে গুপী ডাক দেয়।

গুপী :ও দ্বিজুখুড়ো!
খুড়ো : কি গো?
গুপী : (তানপুরাটা দেখিয়া) এই দ্যাখো!
খুড়ো : ওটা কি?
গুপী : তানপুরা, গান হবে!
খুড়ো : কি গান?
গুপী : ওস্তাদের গান।
গোপীনাথ ওস্তাদ! তুমি চাষা, আমি ওস্তাদ খাসা! হে হে...হে!

গুপী হাসতে হাসতে চলে যায়।
গাঁয়ের মুখে একটা বটতলায় বসে কয়েকজন বৃদ্ধ পাশা খেলছেন। গুপী তানপুরা কাঁধে তাদের দিকে এগিয়ে আসে। একজন বৃদ্ধ গুপীকে দেখতে পান।

প্রথম বৃদ্ধ : ও বাবা!
গুপী : (সকলকে নমস্কার করে) পেন্নাম ঠাকুরমশাইয়া।
প্রথম বৃদ্ধ : এ যে গদা হাতে দ্বিতীয় পান্ডবের প্রবেশ দেখছি হে!

সকলে তানপুরাটা দেখতে চান।

বৃদ্ধেরা : এগিয়ে এসো, এগিয়ে এসো! দেখি, দেখি!

গুপী সামনে বসে থাকা দ্বিতীয় বৃদ্ধের হাতে তানপুরাটা দেয়।

দ্বিতীয় বৃদ্ধ : বাঃ!
প্রথম বৃদ্ধ : সরেশ তানপুরাখান হেঃ!
তৃতীয় বৃদ্ধ : মূল্য কত নিল?

বৃদ্ধ যন্ত্রটা দেখে গুপীকে ফেরত দিয়ে দেন।

গুপী : ঐ পাঁচপুকুরের গোঁসাইখুড়ো? তারই তো এটা!
তৃতীয় বৃদ্ধ : পল্লব গোঁসাই?
গুপী : আজ্ঞে হ্যাঁ-
প্রথম বৃদ্ধ : আরে সে তো বড় ওস্তাদ হে!