প্রিন্ট করার জন্য    ছোটো করে দেখুন বড় করে দেখুন  শেষ  পূর্ববর্তী 
70  

হাল্লা রাজা : রাজরাণী হও।

গুপী-বাঘা তাকিয়ে থাকে।

শুন্ডি রাজা : সত্যিই আল বড় আনন্দের দিন। তোমাদিগের পাত্রী পছন্দ হইয়াছে তো?
বাঘা : পছন্দ হবে কি? এখন পর্যন্ত মুখইতো দেখতে পারলাম না!
গুপী : ভাল ক’রে দেখেশুনে নিতে হবে তো রজামশাই!
বাঘা : ঘোমটা দিয়ে মুখ ঢেকে রাখলে চলবে কেন?

শুন্ডি রাজা মেয়েদের মুখ তোলে।

শুন্ডি রাজা : বড় লাজুক তো। মুখ তোল মা, মুখ তোলো।

গুপী-বাঘা নিজেদের মধ্যে ফিস-ফিস ক’রে কি বলে।

গুপী-বাঘা: রাজপোশাক!

দু’জনে হাতে তালি দেয়। রঙিন রাজ পোশাকে দেখা যায় গুপী-বাঘাকে। মুক্তামালা অবাক হয়ে চেয়ে দ্যাখে। বাঘাও তার দিকে অবাক চোখে দ্যাখে। মণিমালা অবাক হয়ে দ্যাখে। গুপী অবাক হয়ে মণিমালাকে দেখে। গুপী-বাঘা পরস্পর নিজেদের দিকে দ্যাখে। তারপর রাজার দিকে তাকায়।

বাঘা : ঠিক আছে রাজামশাই।
গুপী : জবর হয়েছে।
বাঘা : চলবে।
গুপী : আমাদের খুব পছন্দ হয়েছে।
বাঘা : এবারে দিন টিন সব ঠিক করে ফেলুন। যত তাড়াতাড়ি হয়, ততই ভালো!

ঘরের মেঝেতে একটা রঙিন প্রজাপতি আঁকা দেখতে পাওয়া যায়।